1. admin@ajkerbangla24.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:২৩ অপরাহ্ন

চট্টগ্রামে বন্দরে নতুন জেটি উদ্বোধন, টাগবোট সংযোজন

চট্টগ্রাম ব্যুরো
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২ জানুয়ারি, ২০২২
  • ৮ বার পঠিত

প্রায় একযুগ পর (১৪ বছর) চট্টগ্রামে বন্দরে চালু হলো নতুন একটি সার্ভিস জেটি। কর্ণফুলী নদীর তীরে নগরীর আগ্রাবাদ বারিক বিল্ডিং এলাকায় ১ নম্বর জেটির উজানে এ জেটি নির্মাণ করা হয়। নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী রবিবার এর উদ্বোধন করেন।

বন্দর সূত্র জানায়, জেটিতে ২২০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ২০ মিটার প্রস্থের ৫ মিটার ড্রাফটের (গভীরতা) ১০০ মিটার লম্বা দুটি জাহাজ একসঙ্গে ভিড়তে পারবে। এ জেটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৮৩ কোটি টাকা।

এদিন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের জন্য নবসংগৃহিত টাগবোটও উদ্বোধন করেন প্রতিমন্ত্রী। বন্দরে আগত বড় বাণিজ্িযক জাহাজসমূহের নিরাপদ বার্থিং/আনবার্থিংয়ে সহায়তা প্রদান টাগবোটের মূল কাজ।

এছাড়াও প্রতিমন্ত্রী চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নবনির্মিত নিউমুরিং কন্টেইনার ওভারফ্লো ইয়ার্ড, নবনির্মিত সুইমিংপুল কমপ্লেক্স, বাস্কেটবল গ্রাউন্ড এবং টেনিসকোর্ট উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী চট্টগ্রাম বন্দরকে দেশের অর্থনীতির চালিকাশক্তি ও গেইটওয়ে বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর ‘রিজিওনাল মেরিটাইম কানেক্টিভিটি হাব’ হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের জন্য টাগবোট সংগ্রহ, সার্ভিস জেটি নির্মাণ, নিউমুরিং কন্টেইনার ওভারফ্লো ইয়ার্ড নির্মাণ এবং অন্যান্য স্থাপনা সংযোজন বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্র চট্টগ্রাম বন্দরের জন্য নতুন মাইলফলক। বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য পতেঙ্গা কন্টেইনার টার্মিনাল, বে-টার্মনাল এবং মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মিত হচ্ছে। চট্টগ্রাম বন্দর ‘রিজিওনাল মেরিটাইম কানেক্টিভিটি হাব’ হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম বন্দরের অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দরে খুবই গতিশীলতা বৃদ্ধি পেয়েছে। স্বাভাবিক কর্মকাণ্ডের চেয়ে আরও বেশি গতিশীল হয়েছে। এসব সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বের কারণে।

অর্থনৈতিক উন্নয়নের দিকে পাঁচটি অগ্রসরমান দেশের তালিকায় বাংলাদেশ রয়েছে জানিয়ে খালিদ মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর পর বাংলাদেশ সঠিক নেতৃত্ব পায়নি। এখন শেখ হাসিনার সঠিক নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এর চালিকাশক্তি চট্টগ্রাম বন্দর। অর্থনীতির গেইটওয়ে চট্টগ্রাম বন্দর। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বের ফলে বিদেশিরা দেশে বিনিয়োগের জন্য ধণা দিচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ‘পতেঙ্গা কন্টেইনার টার্মিনাল’ নির্মিত হয়েছে। ‘বে-টার্মিনাল’ এবং ‘মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর’ নির্মিত হচ্ছে।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ শাহজাহান উপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রাম বন্দর সূত্র জানায়, নিয়মিত কার্যক্রমের পাশাপাশি বাণিজ্যিক জাহাজের পণ্য খালাসে নতুন সার্ভিস জেটি ব্যবহার করা যাবে। নতুন সার্ভিস জেটি চালু হওয়ায় বন্দরের মালিকানাধীন বিভিন্ন জাহাজের সুরক্ষা ও বন্দরের অপারেশনাল কার্যক্রমে গতি আসবে। বন্দরের উদ্ধারকারী জাহাজ, টাগবোট, জরিপ জাহাজ, আউটার থেকে বিদেশি জাহাজগুলোকে জেটিতে আনার দায়িত্বে থাকা পাইলটদের বোট, ফায়ার ফাইটিং বোট, পানি সরবরাহকারী জাহাজসহ প্রয়োজনীয় সকল জাহাজ সার্ভিজ জেটি ব্যবহার করবে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. জাহাঙ্গীর আলম খান জানান, নিউমুরিং কন্টেইনার ওভারফ্লো ইয়ার্ডটি কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ের সুবিধা বৃদ্ধির যুগোপযোগী চাহিদা মেটাবে। ইয়ার্ডটির আয়তন ৯০ হাজার ৫২১ বর্গমিটার। এটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১৭৬ কোটি টাকা। সুইমিংপুল কমপ্লেক্স নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ১৬ কোটি টাকা। টেনিসকোর্ট ও বাস্কেটবল গ্রাউন্ড নির্মাণে ব্যয় হয়েছে তিন কোটি ৩৩ লাখ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ আজকের বাংলা ২৪
Themes customized By Theme Park BD